Home লাকী রজব • আলো ছায়া : পর্ব-৯

আলো ছায়া : পর্ব-৯

13891824_1059832890739098_2175162340633802429_n

সে গদ গদ কণ্ঠে বলল,
-বলে আর কি করব রে ভাই, বলতে গেলে বুক ফেটে যায়।
তারপর সে একটানা বলতে লাগল,
-আমার একটা মামাতো বোন ছিল, এখনও আছে তবে সেদিনের মত আর নাই। নাম ইয়িাসমিন, আমার থেকে বছর তিনেকের ছোট। ছোটকালে বাবা বেঁচে থাকতে আমাদের সংসার ভালই চলত, তখন মার সাথে নানীর বাড়ি যেতাম। বেশিটা সময় কাটাতাম মামাতো বোন ইয়াসমিনের সাথে। ধুলা বালি নিয়ে খেলা করতাম, বর বউ সাজতাম। আমি বর সেজে ইয়াসমিনকে বউ করে লতা পাতার খেলা ঘরে আনতাম। কত সুন্দরই না আমাদের দেখাতো তখন। আমার মামা মামি বলতেন, বড় হলে ইয়াসমিনকে হান্নানের সাথে বিয়ে দেব। শুনে আমার খুশির অন্ত থাকত না। আমার নানী কত আমাদের বর বউ সাজিয়েছেন। তখন আমি স্কুলে যেতাম আর ইয়াসমিন ছোট থাকার কারণে স্কুলে যেত না।
তারপর, তারপরের কথা বলতে আর মুখ দিয়ে বের হয় না। বাবার ক্যান্সার হয়ে মারা গেল। সংসারের আয় উন্নতি যা ছিল সব বাবার এই দুনিয়া জয়ী রোগের পেছনে ঢাললাম তবু ভাল হল না। বাবা মারা গেলে আমার লেখাপড়ারও সমাপ্তি হল। অন্যের বাড়ি কামলা খাটতে শুরু করি। তখন ছোট বলে অনেকেই কাজে নিতে চাইত না। কাজ করে একটা ছোট বোন ছিল তাকে বিয়ে দেই। বাবা মারা যাবার পর থেকে আমাদের দিন খুব কষ্টে কাটতো। তখন মামার বাড়িও খুব কম যেতাম। আমার মা কখনও কারও কাছে কিছু চেয়ে নিজে ছোট হয় না।
অনেকদিন পর একদিন মামার বাড়ি যাই। ইয়াসমিন আগের মতই দৌড়ে এসে আমার হাত ধরে টেনে নিয়ে গেল। তা দেখে মামি ওকে কড়া গলায় ডাক দিলে হাত ছেড়ে দিয়ে চলে যায়। ও তখন থ্রির ক্লাসে বলে পড়ত। আমাকে রাতের বেলা ওর বইয়ের সুন্দর সুন্দর গল্প শুনায়েছে। বছর পাঁচেক পরে মার সাথে একদিন মামাদের বাড়ি যাই তবে এই পাঁচ বছরের পাঁচ দিনও ইয়াসমিনের কথা মনে না হয়ে যায় নাই। মামার বাড়ি গিয়ে নিজেরে খাপছাড়া লাগল। নানা-নানী নাই, মামার আর্থিক অবস্থা আগের চেয়ে অনেক ভাল হয়েছে। আমি গেলে সেদিন আর ইয়াসমিন দৌড় দিয়ে কাছে আসলো না। একবার খালি বলল,
-হান্নান ভাই ভাল আছেন? বসেন।
আমি তার কথা শুনে অবাক হলাম। ছোটকালে যে আমারে তুমি বলে ডাকতো আমি তাকে তুই বলে ডাকতাম। আজকের এই ইয়াসমিন আর সেদিনের ইয়াসমিন নাই। এখন লেখাপড়া করে, হা–ই– স্কুলে পড়ে। আমি আগের মতই তাকে জিজ্ঞাসা করলাম,
-তুই কেমন আছিস?
কিন্তু আজ তাকে তুই বলতে মুখে বেঁধে গেল। আমি অনেকক্ষণ ভেবে ঠিক করলাম, আজ ওকে কয়েকটা কথা বলব। 

পর্ব- ১০

Author:luckyrazob

Leave a Reply