Home লাকী রজব • আলো ছায়া : পর্ব- ১৬

আলো ছায়া : পর্ব- ১৬

14199429_1086462264742827_634968264850943437_n

র্শরিফ ফাতেমা পড়তে বসল। আমি গেলে ফাতেমা অঙ্ক করে নিতে চাইল। এ এক সুবর্ণ সুযোগ ভেবে তার খাতায় অঙ্ক করে দিলাম। শরিফ ইংরেজি বই পড়ছিলো। বারবারই একটি লাইন ভূল হচ্ছে দেখে নিজের অজান্তেই তা সঠিক করে বলে দিলাম। ফাতেমা বলল,
-কাক্কু আপনে দেখি ভাইয়ার পড়াও পারেন।
-না, একটু একটু পারি।
ফাতেমাকে ছড়া পড়তে দিয়ে তার খাতা নিয়ে এক পাতায় লিমার উদ্দেশ্য কিছু বয়ান পেশ করলাম। আজ তো আর সামনা সামনি নয়, তাই একটু সাজিয়ে গুছিয়ে লিখতে পারলাম। তবে জীবনের প্রথম কোন মেয়েকে এ ধরনের কথা লিখা বলে হাত একটু একটু কেঁপে কেঁপে দুর্বলতা প্রকাশ করল।

“শ্রদ্ধেয় শিক্ষিকা,
এ অধমের আন্তরিক সালাম নিবেন। তার সঙ্গে পাবেন একগুচ্ছ সাদা গোলাপের শুভেচ্ছা। কারণ, এ ছাত্রের হৃদয় বাগানে এখনো রঙিন ফুল ফোটেনি। যদি দয়া করে ছাত্রটার দিকে একটু মনযোগ দেন, তাহলে শীঘ্রই তার হৃদয় বাগান রঙে রঙিন হয়ে উঠবে। অন্য সময় ইচ্ছা হয় আপনার সঙ্গে কথা বলব কিন্তু আপনি সামনে আসলে আমার মুখের ভাষা হারিয়ে যায়। বলার কত কথাই না থাকে কিছুই বলতে পারি না। কেন যে এমনটা হয় জানিনে। আপনি কি বলতে পারেন কেন এমন হয়? যদি এ অধম ছাত্রকে দয়া করে সে তত্ত্বটি শিক্ষা দিয়ে তার বাস্তবতা প্রমাণ করে দেন তাহলে ছাত্রটি সে বাস্তবতা নিয়েই চিরকাল বেঁচে থাকবে। আ—-ই—-লা—–আর পারলাম না। কলম আর সামনে এগোলো না, দয়া করে শুন্যস্থানটি পূরণ করে দিবেন।
ইতি
আপনারই আমি।

লিখতে লিখতে কতবার যে ভাবলাম আর লিখব না, তার অন্ত নাই। শেষে একবার ভাবলাম, খাতা থেকে পৃষ্ঠাটি ছিড়ে ফেলে দেই কিন্তু তাও হল না। ফাতেমা খাতা নিয়ে চলে গেল। লেখাটি বাধ্য হয়েই লিমার হাতে গিয়ে পড়ল। পরদিন সকালবেলা ফাতেমা প্রাইভেট থেকে আসলে তার খাতাটি ধরে দেখলাম, যে পৃষ্ঠায় আমি লিখেছিলাম সেটি খাতায় নেই, লিমা ছিড়ে নিয়েছে। আমার আশা ছিল, লিমার গোটা গোটা হাতের লেখা একটি জবাব পাব কিন্তু হল না। তার পরদিনের আশায় রইলাম। পরদিনও পেলাম না তার পরদিনও পেলাম না অবশেষে এক রকম আশাই ছেড়ে দিলাম। কেন জানিনে, আমি এ কয়দিন বেশি দেখতে পাইনে।
ফাতেমা একদিন প্রাইভেট থেকে এসে বলল,
-কাক্কু, ফুফু কয়টা অঙ্ক করতে দিয়েছে। না পারলে বলছে আপনার কাছ থেকে করে নিতে।
-কই দেখি?
অনেকটা উৎসাহ ভরে জিজ্ঞাসা করলাম। খাতা বের করে দেখলাম অঙ্কের নিচে লেখা, অঙ্কগুলোর উত্তর খাতার ভিতরে পিনআপ করা আছে। প্রয়োজন হলে দেখতে পারেন। মনে মনে বললাম, চাচ্ছিই তো সেটা।

পর্ব- ১৭ 

Author:luckyrazob

Leave a Reply